25 November- 2020 ।। ১১ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ ।। সকাল ১১:৫৮ ।। বুধবার

মুক্তিযোদ্ধা শহীদ জাহাঙ্গীর সেলিমকে নিয়ে কবি মজিদ মাহমুদের কবিতা

মজিদ মাহমুদ

শহিদ জাহাঙ্গীর সেলিম

(পাবনা সাত-আনার মাঠে মুক্তিযুদ্ধে শহীদ)

আমাদের সব প্রতিরোধ ভেঙ্গে পড়ার আগেই

তুমি তুলে নিলে মেশিনগান-

সহযোদ্ধাদের বললে, কুইক-মার্চ

শত্রু সঙ্ঘবদ্ধ হওয়ার আগেই

ছড়িয়ে পড়ল যে যার মতো

তিন দিকে অবস্থান নিয়েছে ভয়াল হানাদার বাহিনী

উন্মুক্ত দক্ষিণে পদ্মার বিশাল খাঁড়াই

অজস্র গোলার শব্দে আমরা তখন দিশেহারা

তবু শত্রুকে ভুলিয়ে তুমি কিছুক্ষণ ব্যস্ত রাখলে কমরেড

যাতে এরই ফাঁকে নিরাপদ আশ্রয় নিতে পারে

তোমার সহযোদ্ধা দেশমাতৃকার প্রিয় সন্তানেরা

তুমি জানো সব প্রিয়প্রাণ যাবে না করা খরচ একই সঙ্গে

তাই একাই ভয়ঙ্কর গুলির শব্দে কাঁপিয়ে দিচ্ছিলে শত্রুর বুহ্য

আর নির্দেশ দিচ্ছিলে- তোমরা পালাও ভবিষ্যতে লড়াইয়ের জন্য

তোমায় মোকাবেলার ফাঁকে আমরা খুঁজে নিলাম যে যার আশ্রয়

তখন তোমার মনে পড়ল- দুখিনি মায়ের কথা

আহত সন্তানকে দেখার জন্য এসেছিলেন যিনি সমর-প্রান্তরে

কিন্তু বন্দিনী মা-মৃত্তিকার সন্তান তুমি

যে জন্মভূমি তোমার মায়েরও জননী

তাকে অরক্ষিত রেখে কি করে যেতে পার তার কাছে!

তোমার মনে পড়ল- আদরিনী সহোদরার মুখ

মায়ের আঁচলে শরম লুকিয়ে সেও এসেছিল দেখতে

বুভুক্ষু ভাইয়ের তাপিত হৃদয় নিয়ে

কিন্তু অজস্র ধর্ষিত-বোনের মুখের আড়াল থেকে

কি করে দেখবে তুমি আপন সহোদরা!

এ সব ভাবতে ভাবতেই  একটি পাকি বুলেট

তোমার বুকের ভেতর দিয়ে চলে গেল এফোঁড়-ওফোঁড়

তারপর অজস্র বুলেটের ঝাঁক আছড়ে পড়ল তোমার ওপর

এক নশ্বর জীবনের বিনিময়ে তুমি মুক্তি দিলে

অগুনিত মুক্তিযোদ্ধার জীবন

কিন্তু আজো আমরা যারা যুদ্ধের ময়দানে

জীবন নিয়ে কেবল পালিয়ে বেড়াচ্ছি

প্রতিরোধ করছি না অশুভ শক্তির

তখন তোমার বিদেহী আত্মার অদৃশ্য- আঘাত

করতে থাকে আমাদের পশ্চাদ্ধাবন।

Sharing is caring!



এই বিভাগের আরো খবর...