25 November- 2020 ।। ১১ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ ।। সকাল ১১:৫১ ।। বুধবার

প্রাইম ইউনিভার্সিটির শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা, ছবি: সিও

প্রাইম ইউনিভার্সিটির ইইই বিভাগের শিক্ষার্থীদের ইন্ডাস্ট্রিয়াল ট্যুর অনুষ্ঠিত

মো: শাকিল ইসলাম : প্রাইম ইউনিভার্সিটির ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং (ইইই) বিভাগের শিক্ষার্থীদের ইন্ডাস্ট্রিয়াল ট্যুর অনুষ্ঠিত হয়েছে।

রবিবার (২৯ সেপ্টেম্বর ) দুপুরে কর্ণফুলী পানি বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্রে এ ট্যুর অনুষ্ঠিত হয়। এসময় শিক্ষার্থীরা  দুটি পর্বে স্থাপনাটির বিদ্যুৎ মোট ২৩০ মেগাওয়ার্ট উৎপাদন ক্ষমতা সম্পন্ন পাওয়ার প্ল্যান্ট পরিদর্শন করেন। পানি থেকে কিভাবে বিদ্যুৎ  উৎপাদন করা হয়  সেগুলো পরিদর্শন করেন ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের বিভিন্ন ব্যাচের শিক্ষার্থীরা।

পরিদর্শনে কতৃপক্ষ জানান,  ১৯০৬ সালে সর্বপ্রথম জলবিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপনের জন্য সম্ভাব্যতা যাচাই করা হয়। এদেশের একমাত্র পানি বিদ্যুৎ কেন্দ্র কাপ্তাইয়ে অবস্থিত। কর্ণফুলী নদীর উপর বাঁধ দিয়ে রাঙামাটি জেলার কাপ্তাই উপজেলায় কাপ্তাই বাঁধ তৈরি করা হয়। ১৯৬২ খ্রিষ্টাব্দে ৪৬ মেগাওয়াট করে দুটি ইউনিট নিয়ে কেন্দ্রটির যাত্রা শুরু হয়। পরবর্তীকালে ৫০ মেগাওয়াট করে আরো তিনটি ইউনিট স্থাপন করা হয়। এর মধ্যে তিন নম্বর ইউনিটটি ১৯৮২ , এবং ৪ ও ৫ নম্বর ইউনিট চালু হয় ১৯৮৭ খ্রিষ্টাব্দে। এর মধ্যে প্রথম তিনটি বসে যুক্তরাষ্ট্রের প্রযুক্তিতে। পরের দুটি স্থাপন করে জাপানের টোকিও ইলেক্ট্রিক পাওয়ার সার্ভিসেস কোম্পানি (টেপ্সকো)। এ দুটি স্থাপনের সময়ই আরো দুটি ইউনিট স্থাপনের জন্য আনুষঙ্গিক সুবিধা রেখে দেয়া হয়। জাপানী এই প্রতিষ্ঠানটিই ১৯৯৮ খ্রিষ্টাব্দে সেখানে আরো বিদ্যুৎ উৎপাদন করা সম্ভব কিনা সে বিষয়ে একটি সম্ভাব্যতা যাচাই করে। এ সংক্রান্ত প্রতিবেদনে তারা জানায়, বর্তমান অবকাঠামো এবং এই  পানি দিয়েই কাপ্তাই হ্রদে ৫০ মেগাওয়াট ক্ষমতাসম্পন্ন আরো দুটি ইউনিট বসানো সম্ভব। তাতে কাপ্তাইয়ে বিদ্যুৎ উৎপাদন খরচ আরো কমে আসবে। বর্তমানে গড়ে প্রতি ইউনিট বিদ্যুৎ উৎপাদনে ব্যয় হয় বিশ পয়সা।বর্তমানে মোট পাঁচটি ইউনিট চালু আছে যার মোট বিদ্যুৎ উৎপাদন ক্ষমতা ২৩০ মেগাওয়াট

তিনি আরো বলেন, তত্ত্বীয় ক্লাসে শিক্ষার্থীরা কারিগরি দিকগুলো ঠিকভাবে বুঝে উঠতে পারেন না। তাই এখানে ইন্ডাস্ট্রিয়াল ট্যুরের মাধ্যমে ব্যবহারিক শিক্ষা নিয়ে শিক্ষার্থীরা বাস্তবমুখী শিক্ষা গ্রহণ করতে পেরেছেন।এ ধররেণ ইন্ডাস্ট্রিয়াল ট্যুর শিক্ষার্থীদের জন্য গুরুত্বপূ বলেও জানান তিনি। ভবিষ্যতেও কর্ণফুলী পানি বিদ্যুৎ  উৎপাদন কেন্দ্রে পরিদর্শনের জন্য প্রাইম ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থীদের সুযোগ দেওয়া হবে বলে জানান প্রতিষ্ঠানটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক

ইন্ডাস্ট্রিয়াল ট্যুর এ প্রাইম ইউনিভার্সিটির ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রধান  মো: মোস্তাক আহম্মেদ , ফ্যাকাল্টি মেম্বাররা উপস্থিত ছিলে

 

Sharing is caring!



এই বিভাগের আরো খবর...